কাঁধে ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো জেনে নিন

কাঁধে ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো জেনে নিন

ব্যথা শরীরের যেখানেই থাকুক না কেন, কষ্ট পেতেই হবে। তাই কোনো ব্যথা কমানোর কোনো উপায় নেই। অনেকেই আছেন যারা কাঁধের ব্যথায় ভোগেন। ব্যথা কমানোর জন্য কী করা উচিত তা তারা ঠিক বুঝে উঠতে পারে না। ব্যথা বেশি হলে বা দীর্ঘ সময় ধরে থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এর আগে ব্যাথা কমাতে ঘরোয়া উপায়গুলো অনুসরণ করতে পারেন।

আজকাল আমরা বেশিরভাগই কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করি। দীর্ঘক্ষণ একই অবস্থানে বসে থাকা এবং কম্পিউটারের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকার কারণে কাঁধে ব্যথা হওয়া স্বাভাবিক। এই কাঁধের ব্যথার সমস্যা একবার শুরু হলে সহ্য করা কঠিন। এ কারণে অনেক সময় স্বাভাবিক কাজ করা সম্ভব হয় না। আসুন জেনে নেই কাঁধের ব্যথার ৩টি ঘরোয়া উপায়-

আইস থেরাপি ব্যবহার করুন


আইস থেরাপি কাঁধের ব্যথা উপশম করার একটি কার্যকর উপায় হতে পারে। এই থেরাপি খুব দ্রুত এবং সহজে ব্যথা কমাতে পারে। এতে ফোলাভাবও কমবে। ব্যথা উপশমে আইস থেরাপি বেশি উপকারী। জয়েন্ট বা পেশীর ব্যথায় আইস থেরাপি বেশি কার্যকর। তবে সরাসরি বরফ দেবেন না। প্রথমে একটি পরিষ্কার তোয়ালে বরফের টুকরা রাখুন। তারপর তোয়ালে মুড়িয়ে ব্যথার জায়গায় কুড়ি মিনিট রাখুন। এতে ব্যথা অনেকটাই কমে যাবে।

গরম সেঁক দিন


নতুন ব্যথার জন্য আইস থেরাপি বেশি কার্যকর। ব্যথা দীর্ঘস্থায়ী হলে আইস থেরাপির পরিবর্তে গরম কমপ্রেস দিন। এই গরম ক্বাথ জয়েন্ট এবং পেশী ব্যথা নিরাময়ে খুব কার্যকর। আপনি কাপড় গরম করতে পারেন বা গরম জলের ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। এটি প্রভাবিত এলাকায় রক্ত ​​​​প্রবাহ বৃদ্ধি করে। ফলে ব্যথা দ্রুত কমে যায়।

লবণ পানিতে গোসল করুন


ব্যথা কমানোর আরেকটি সহজ উপায় হল লবণ জলে গোসল করা। এটি আপনার কাঁধে ব্যথা এবং ফোলা কমাতে কার্যকর হতে পারে। কারণ লবণ পানিতে গোসল করলে মাংসপেশির ব্যথা অনেক কমে যায়। এটি ফোলাও কমায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, লবণ পানিতে গোসল করলে শরীরে রক্ত ​​চলাচল বৃদ্ধি পায়। যার কারণে ব্যথা ও ফোলাভাব কমে যায়। এই পানিতে আধা ঘণ্টা রেখে গোসল করতে পারেন। এতে ব্যথা কমবে।

রেফারেন্সঃ dhakapost.com

Post a Comment

Previous Post Next Post

কুকিজ সম্মতি

এই ওয়েবসাইটটি আপনাকে একটি ভালো ব্রাউজিং অভিজ্ঞতা দিতে কুকিজ ব্যবহার করে। আমাদের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে, আপনি কি কুকিজ ব্যবহারে সম্মত আছেন?

আরও জানুন