গরুর মাংস শরীরে কী কাজ করে জেনে নিন ?

গরুর মাংস শরীরে কী কাজ করে জেনে নিন ?

গরুর মাংসে অনেক সক্রিয় উপাদান রয়েছে, যা শরীরের জন্য উপকারী। গরুর মাংসকে বলা হয় অন্ধকার প্রাণীর মাংস। দামের কারণে সারা বছর খুব একটা খাওয়া না হলেও কোরবানি উপলক্ষে কমবেশি সবাই গরুর মাংস খায়।

বারডেম হাসপাতালের প্রধান পুষ্টি কর্মকর্তা (অবসরপ্রাপ্ত) আখতারুন নাহার আলো গরুর মাংসের বিভিন্ন উপকারী উপাদান ও এর কার্যকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন।

গরুর মাংসে রয়েছে আয়রন, ফসফরাস, ভিটামিন বি১ এবং ভিটামিন বি২। বেশিরভাগ চর্বি বাইরের দিকে থাকে। আর মাটন ও মাটনে রয়েছে প্রচুর চর্বি।

এ কারণে এসব মাংস থেকে চর্বি অপসারণ করা কঠিন হয়ে পড়ে।

তবে গরুর মাংসের চেয়ে গরুর মাংস হজম করা সহজ। মাংসে স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকলেও লাল মাংস এবং লিভারে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে। এ কারণে রক্তশূন্যতায় গরুর মাংস খুবই কার্যকরী।

কোষের ক্ষতি পূরণের জন্য সব বয়সের মানুষের মাংস প্রয়োজন। শরীরে প্রোটিন বা আমিষের ঘাটতি পূরণের জন্য এবং ওজন বাড়াতে গরুর মাংস খুবই উপকারী।

এ ছাড়া পর্যাপ্ত জিঙ্ক থাকার কারণে শরীরের ক্ষত ও পোড়া সারানোর জন্য লাল মাংসের প্রয়োজন হয়।

ঘামের সাথে ক্রীড়াবিদদের শরীর থেকে জিঙ্কও নির্গত হয়। সে কারণে তাদের খাবারে মাংস রাখা যেতে পারে।

এটা দেখা যায় যে নিরামিষাশীদের জিঙ্কের ঘাটতি রয়েছে। পেশির শক্তি বাড়াতে মাংসের কোনো মিল নেই। শিশু, গর্ভবতী মহিলা এবং স্তন্যদানকারী মায়েদের অন্যদের তুলনায় আমিষ বেশি প্রয়োজন।

নিম্নবিত্তদের সবসময় প্রোটিনের ঘাটতি থাকে। যদি তাদের ইচ্ছা থাকে, তারা কোরবানি দিয়ে সেই অভাব পূরণ করতে পারে। মাংসের চর্বি শুধুমাত্র পুষ্টির অভাব পূরণ করে না-এটি ভিটামিনও সরবরাহ করে।

তবে সতর্কতার বিষয় হলো মাংসে থাকা রোগজীবাণু শরীরে বিষ তৈরি করে। এ কারণে রোগাক্রান্ত পশুর মাংস খেলে অসুস্থ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই যারা ঈদে কুরবানী করবেন তারা এ ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন।


রেফারেন্সঃ jugantor.com

Post a Comment

Previous Post Next Post

কুকিজ সম্মতি

এই ওয়েবসাইটটি আপনাকে একটি ভালো ব্রাউজিং অভিজ্ঞতা দিতে কুকিজ ব্যবহার করে। আমাদের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে, আপনি কি কুকিজ ব্যবহারে সম্মত আছেন?

আরও জানুন