বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত খেতে মজাদার মাশরুম কাবাব

বাড়িতে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত খেতে মজাদার মাশরুম কাবাব


অনেকেই মাশরুম (Mushroom) খেতে পছন্দ করেন। পুষ্টিকর এই সবজিটির জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে। তবে শীত, বৃষ্টি এবং উইকএন্ড- এই তিনটি একত্রিত হলেই যে অলসতা চরমে পৌঁছায় তাতে কোনো সন্দেহ নেই। শীত মানেই পার্টি আর হই হুল্লোড়ের মরশুম। কাজের সপ্তাহের শেষে, শনি এবং রবি এই দুটি দিন বেশিরভাগই তাদের কাছের মানুষ বা বন্ধুদের সাথে কাটান। এছাড়াও, রবিবার, সমস্ত বাড়িতে, বেশম খাওয়া দাওয়া জমাটি হয়।

দিন শুরু হয় লুচি-তরকারি দিয়ে আর শেষ হয় মাংস-ভাত দিয়ে। কেক, মিষ্টি, পায়েসও সারাদিন পাওয়া যায়। আড্ডা চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। আপনার স্বাস্থ্যের উপর এই সব মিলিত প্রভাব. নিয়ম অনুযায়ী না খাওয়া, সময়মতো না খাওয়া এবং বেশি খাওয়ার কারণে অনেকেই হজমের সমস্যায় ভোগেন। সবার রবিবার ছুটি নেই। ফলে এমন ছুটির দিনেও যাদের চব্বিশ ঘণ্টা অফিসে আসতে হয় তাদের জন্য সময়মতো ঘুম ও সকালের নাস্তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আগের রাতে অনেক তৈলাক্ত ও মশলাদার খাবার খেলে পরের দিন একটু হালকা করে খাওয়া ভালো।

আর তাই সকালের নাস্তায় দুধ, চা, কফি বা ব্রেড টোস্ট এড়িয়ে চলুন। পরোটা বা লুচিও খাবেন না। এটি হজমের পাশাপাশি শরীরের জন্যও উপকারী। মাশরুম কাবাব

মাশরুমও খেতে পারেন। মাশরুমে একেবারেই চর্বি থাকে না। এতে ফাইবারও বেশি থাকে তাই এটি দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে। এছাড়াও (Mushrooms antioxidants), প্রয়োজনীয় খনিজ পদার্থে সমৃদ্ধ। যা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ওজন কমাতেও সাহায্য করে। শরীর হালকা রাখে। যাদের কোলেস্টেরলের সমস্যা আছে তাদের জন্যও Mushroom খুব ভালো।

ছোটবেলায় Mushroom দেখে ব্যাঙের ছাতা বলতাম! সেই ব্যাঙের ছাতা মানে মাশরুমের স্বাদ কতটা দারুণ হতে পারে তা আজকের রেসিপি তৈরি করার পরই বুঝতে পারবেন। আমি জানি আপনারা অনেকেই বিভিন্ন উপায়ে Mushroom রান্না করেন। যা খেতেও দারুণ। তবে একদিন আমার এই রেসিপিটি ট্রাই করে দেখতে পারেন। এটি কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রস্তুত করা যায় এবং সুস্বাদু। যারা Mushroom খেতে পছন্দ করেন না তারা এভাবে এই পদটি খেলে মাশরুমের প্রেমে পড়ে যাবেন। আজ আমি এই পদটি কিভাবে বানাতে হয় তার বিস্তারিত লিখছি।

আজ আমরা এই পদটি সম্পর্কে কথা বলব। চলুন জেনে নেই মাশরুম কাবাব তৈরির নিয়ম।

মাশরুম কাবাব রাঁন্নার উপকরণ

  • Mushroom - ২০০ গ্রাম
  • ছোলা- ১/২ কাপ
  • পেঁয়াজ কাটা - ১/২ কাপ
  • আদা-রসুন পেস্ট- ১.৫ কাপ
  • আলু- ১ টি (সেদ্ধ করে মেশানো)
  • মরিচ গুঁড়া- ১ চা চামচ।
  • ধনে গুঁড়া- ১ চা চামচ।
  • গরম মসলা- ১ চা চামচ।
  • ধনে পাতা - ২ চা চামচ।
  • মরিচ গুঁড়া- ১/২ চা চামচ।
  • ব্রেড ক্রাম
  • লবণ
  • তেল

মাশরুম কাবাব রাঁন্নার পদ্ধতি

১) ছোলা ১.৫ ঘন্টা জলে ভিজিয়ে রাখুন।

২) Mushroom  ভাল করে ধুয়ে নিন এবং নীচের ডালপালা কেটে নিন। ৪ কাপ জলে ১ চা চামচ লবণ ও লেবুর রস দিয়ে ফুটিয়ে নিন। এতে এটি ২ মিনিট সিদ্ধ করুন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে এই গুলো ধুয়ে, কাগজের তোয়ালে দিয়ে হালকা করে শুকিয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে নিন।

৩) একটি প্যানে ১ টি চা চামচ তেল ও পেঁয়াজ দিয়ে নাড়ুন। হালকা ভাজা আদা-রসুন বাটা দিয়ে নাড়ুন।

৪) ১ মিঃ নাড়ুন ছোলা দিয়ে। এরপর পর্যাপ্ত পানি দিয়ে ঢেকে মাঝারি আঁচে চুলায় রাখুন। পানি শুকাতে দিন এবং ফুটে উঠা পর্যন্ত রান্না করুন।

৫) সেদ্ধ ছোলা এবং Mushroom গ্রাইন্ডার বা ফুড প্রসেসরে পিষে নিন। একটি পাত্রে মিশ্রণটি নিয়ে তাতে ধনেপাতা কুচি, গরম মসলা, কুচি করা আলু, মরিচের গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া এবং লবণ দিয়ে মিশিয়ে ছোট ছোট গোল কাবাব তৈরি করুন। ব্রেড ক্রাম্বে কাবাব গুলো কোট করুন।

৬) এবার একটি ফ্রাইং প্যানে সামান্য তেল নিয়ে কাবাবগুলিকে দুই পাশে সোনালি বাদামি হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। ভাঁজ হয়ে গেলে একটি প্লেটে কিচেন টিস্যু দিয়ে কাবাবগুলো তুলে ফেলুন।

সুস্বাদু মাশরুম কাবাব প্রস্তুত। মাশরুম ও ডাল পিষানোর সময় পানি দেবেন না! এবং যদি কাবাবের মিশ্রণটি খুব আঠালো মনে হয় তবে আপনি সামান্য ময়দা যোগ করতে পারেন।


রেফারেন্স: shajgoj.com

পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
মন্তব্য নেই
মন্তব্য যোগ করুন
comment url